১২ জুলাই থেকে টাকা ফেরত নিতে পারবেন হজযাত্রীরা

আপডেট: June 24, 2020, 10:00 pm

সোনার দেশ ডেস্ক:


এ বছর হজ আয়োজিত হবে স্বল্পপরিসরে। বাইরের কোনো দেশ থেকে কেউ হজে অংশ নিতে পারবেন না। এর মধ্যে বাংলাদেশের যেসব হজযাত্রী নিবন্ধন ও প্রাক নিবন্ধন করেছিলেন বাতিল হয়ে যাবে। ১২ জুলাই থেকে তারা টাকা ফেরত নিতে পারবেন। আর যারা টাকা ফেরত নেবেন না পরের বছর হজে যেতে অগ্রাধিকার পাবেন।
সৌদি সরকার কর্তৃক সীমিত হজের সিদ্ধান্ত আলোচনা-পর্যালোচনা শেষে বুধবার (২৪ জুন) দুপুরে জরুরি ভার্চুয়াল সভায় এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয়।
ধর্মসচিব মো. নূরুল ইসলামের সভাপতিত্বে মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (হজ) এবিএম আমিন উল্যাহ নূরী, সৌদি আরব থেকে বাংলাদেশের কাউন্সিলর (হজ-অতিরিক্ত সচিব) মাকসুদুর রহমান, হজ এজেন্সিজ অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব) এর সভাপতি এম শাহাদত হোসাইন তসলিম, বিমানের এমডি, হজ পরিচালক, স্বাস্থ্য প্রতিনিধি, পাসপোর্ট অধিদপ্তরের প্রতিনিধিসহ হজব্যবস্থাপনা সংশ্লিষ্ট স্টেকহোল্ডাররা অংশ নেন।
সিদ্ধান্তগুলো হলো:
চলতি বছরের প্রাক-নিবন্ধন এবং নিবন্ধন যথারীতি ২০২১ (১৪৪২ হিজরি) সালের প্রাক নিবন্ধন এবং নিবন্ধন হিসাবে কার্যকর থাকবে।
আগামী বছর অর্থাৎ ২০২১ সালে কোনো কারণে হজ প্যাকেজ এর ব্যয় বৃদ্ধি বা হ্রাস পেলে তা বর্তমানে হজযাত্রীর জমাকৃত অর্থের সমন্বয় করা হবে।
কোনো হজযাত্রী নিবন্ধন বাতিল করলে একইসঙ্গে তার প্রাক নিবন্ধন বাতিল হয়ে যাবে এবং তিনি নতুন করে প্রাক-নিবন্ধন করে হজে যেতে হবে।
কোনো হজযাত্রী হজের টাকা উত্তোলন করতে চাইলে সরকারি/ বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজযাত্রীদের জন্য তিনি অনলাইনে মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে আবেদন করবেন এবং কোনো ধরনের সার্ভিস চার্জ কাটা ছাড়াই তাকে তার সমুদয় অর্থ ফেরত দেওয়া হবে। এক্ষেত্রে তার প্রাক নিবন্ধন বাতিল হয়ে যাবে এবং নতুন করে হজে যেতে চাইলে প্রাক নিবন্ধন করতে হবে।
বেসরকারি হজ ব্যবস্থাপনার হজযাত্রী নিবন্ধন বাতিল করে টাকা উত্তোলন করতে চাইলে তার হজ এজেন্সির মাধ্যমে অনলাইনে আবেদন করবেন এবং মন্ত্রণালয় তা অনুমোদন করা সাপেক্ষে হজ এজেন্সির মাধ্যমে অথবা ব্যাংকের মাধ্যমে তাদের জমা করা অর্থ নেবেন।
সরকারি অথবা বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় যেসব হজযাত্রী তাদের জমা করা নিবন্ধনের টাকা তুলতে চান তাদেরকে আগামী ১২ জুলাইয়ের পর আবেদন করতে হবে।
সভায় প্রয়াত প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শেখ মো. আব্দুল্লাহ’র আত্মার মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ দোয়া করা হয়।
করোনাভাইরাসের জন্য এ বছর একেবারেই সীমিত আকারে হজ অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সৌদি সরকার। এ কারণে চলতি বছর হজে যেতে পারছেন না বাংলাদেশের কোনো হজযাত্রী।
প্রতি বছর বিশ্বের বিভিন্ন দেশের প্রায় ২৫ লাখ মুসলিম হজ পালন করেন। বাংলাদেশ থেকে এ বছর এক লাখ ৩৭ হাজার হজযাত্রী যাওয়ার কথা ছিল। হজে যেতে ইচ্ছুক ৬৫ হাজার ৫১২জন নিবন্ধন করেন। সৌদি সরকারের সীমিত আকারে হজ আয়োজনের সিদ্ধান্তের কারণে তাদের কেউ এবার হজে যেতে পারছেন না।
তথ্যসূত্র: জাগোনিউজ