১,৩,০,২,৭,০,১,০,০,৩,০*!

আপডেট: সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৭, ১২:৪৯ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


ওপরেরটা বুঝেছেন কোনো ম্যাচের স্কোরলাইন! ১১ ব্যাটার মিলে ১৭ রান! স্কোর লাইন ১,৩,০,২,৭,০,১,০,০,৩,০*! আগে দেখেছেন এমন স্কোরকার্ড? বাংলাদেশের নারী প্রিমিয়ার লিগে যে নারী ক্লাবটি এই ঘটনার শিকার তারাও বুঝি কখনো এমন দেখেন নি! আর এমন কাণ্ডের পর তাদের স্বপ্নেও বারবার ফিরে আসতে বাধ্য এই স্কোর লাইন!
দলের ১১ জন ব্যাটারের একজনও পারলেন না দুই অঙ্কের কোটা ছুঁতে। সর্বোচ্চ রানের স্কোরটি আসে মিস্টার এক্সট্রা থেকে। এমনই এক অদ্ভুত ম্যাচ হয়েছে নারীদের ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে। রোববার ইন্দিরা রোড ক্রীড়া চক্রের বিপক্ষে ১০ উইকেটেই জিতেছে খেলাঘর সমাজ কল্যাণ সমিতি। দিনের অপর ম্যাচে দারুণ জয় পেয়েছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রূপালী ব্যাংক। শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে মাত্র ২ রানে কলাবাগান ক্রীড়া চক্রকে হারায় দলটি।
সাভারের বিকেএসপিতে টস হেরে ব্যাট করতে নামে ইন্দিরা রোড। শুরুতেই রিতু মনি ও ভারতীয় রিক্রুট রেনি যাদবের তোপে পড়ে দলটি। টিকে থাকার চেষ্টা করছিলেন ব্যাটাররা। অনেকক্ষণ এভাবে সামলে গেছেন। এই কারণেই ৩৪ ওভার পর্যন্ত গেছে তাদের ইনিংস। কিন্তু দলগত রান পেরুতে পারেনি ওই ওভারের সংখ্যাটিকেও! কি আশ্চর্য! ৩৪ ওভারে মাত্র ৩১ রানেই অলআউট হয়ে যায় ইন্দিরা রোড! সর্বোচ্চ ৭ রান করেন রিতা সাহা। খেলাঘরের রেনু ৪টি উইকেট নেন ৬ রানের খরচায়। আর ৮ রানের বিনিময়ে ৪টি পান রিতু। ৩২ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে ৮.৩ ওভারেই কোনো উইকেট না হারিয়ে জয় তুলে নেয় খেলাঘর। রুবাইয়া হায়দার ১৩ ও একা মল্লিক ৭ রানে অপরাজিত থাকেন।
বিকেএসপিতেই অন্য মাঠে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নামে রূপালী ব্যাংক। শুরুটাও করে দুর্দান্ত। ১১২ রানের ওপেনিং জুটি এনে দেন সানজিদা ইসলাম ও আয়শা রহমান শুকতারা। এ জুটির পর আর কোনো বড় জুটি না হওয়ায় ৮ উইকেটে ২০০ রানে সন্তুষ্ট থাকতে হয় দলটিকে। তাদের পক্ষে সানজিদা সর্বোচ্চ ৬০ রান করেন ১০৪ বল মোকাবেলা করে। এছাড়া শুকতারা ৯৫ বলে করেন ৪৬ রান। শেষদিকে তাজিয়া আক্তার ৩৮ বলে ৪১ রানের আগ্রাসী ইনিংস খেলেন। কলাবাগানের পক্ষে ২টি করে উইকেট পান পান্না ঘোষ, লতা মণ্ডল ও সুলতানা খাতুন।
২০১ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে শুরুটা ভালো হয়নি কলাবাগানের। দলীয় ২৩ রানেই দুই ওপেনারকে হারায় তারা। এরপর শায়লা শারমিন ও লতার ১১০ রানের জুটিতে দারুণ প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়েছিল দলটি। তবে শেষদিকের ব্যাটারদের ব্যর্থতায় ৭ উইকেটে ১৯৮ রান করতে সমর্থ হয় দলটি। ৯৫ বলে দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৬৮ রানের ইনিংস খেলেন লতা। শায়লা ৪৮ ও সুলতানা ইয়াসমিন ২৫ রান করেন। রূপালী ব্যাংকের পক্ষে ৩টি উইকেট নিয়েছেন তাজিয়া। তবে এই উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচটি নয়, এদিনের আলোচনায় কিন্তু ১,৩,০,২,৭,০,১,০,০,৩,০*!