১৪ দলীয় জোটের সভা আজ

আপডেট: মে ২৩, ২০২৪, ১২:১৯ পূর্বাহ্ণ

জোট সক্রিয় ধারায় ফিরে আসুক


ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোটের প্রয়োজনীয়তা কি শেষ হয়েছে? দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি বিবেচনায় জোটের প্রয়োজনীয়তা মোটেও শেষ হয়ে যায় নি। বরং জোট রাজনৈতিকভাবে কীভাবে শক্তিশালী করা যায় সেটাই গুরুত্বের দাবি রাখে। বাম ও গণতান্ত্রিক ধারার দ্বৈরত দেশের সাম্প্রদায়িক জঙ্গিগোষ্ঠির বিরুদ্ধে লড়াই-সংগ্রাম দেশের মানুষের জন্য সাহস ও অনুপ্রেরণার। ইতিপূর্বে দেশের মানুষ সে প্রমাণ দিয়েছে।

জঙ্গিগোষ্ঠির তৎপরতা যে এখনো দেশে আছে তা আইন-শৃঙ্খলা বাহিনি স্বীকার করে থাকেন। মাঝে মধ্যেই বাহিনির সদস্যরা জঙ্গি ডেরায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে। তবে জঙ্গি গোষ্ঠিগুলো প্রত্যক্ষভাবে তৎপরতা চালাতে না পারলেও নেপথ্যে থেকে তারা ঠিকই সাংগঠনিক তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে দেশের মানুষকে সোচ্চার ও সংগঠিত করতে ১৪ দলীয় জোটের ভূমিকা অনস্বীকার্য।

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ বিষয়টির প্রতি গুরুত্বারোপ করেছে। তারাও জোটকে এগিয়ে নেয়ার তাগিদ অনুভব করেছে। এটা সুখের কথা। তবে জোটকে সক্রিয় করার মধ্য দিয়েই এর প্রয়োজনীয়তার প্রমাণ দিতে হবে। জোটের মধ্যেই যদি হতাশা দানা বাঁধে তা হলে এর গুরুত্ব হারাবে। সেটা গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক ধারা এগিয়ে নিতে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হওয়া অসম্ভব কিছু নয়।

আজ বৃহস্পতিবার জোটের বৈঠক হওয়ার কথা। সন্ধ্যা ৭টায় প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে জোট শরিকদের নিয়ে বসবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রায় সাড়ে পাঁচ মাস পরে তিনি জোটসঙ্গীদের নিয়ে বসতে যাচ্ছেন। তবে বৈঠকে কী নিয়ে আলোচনা হতে পারে সে ব্যাপারে জানেন না বলে দাবি করেছেন শরিক দলগুলোর নেতারা।

তবে প্রধানমন্ত্রীর ডাকা এই বৈঠক তাৎপর্যপূর্ণ। জোটের প্রয়োজনীয়তা থেকেই এই বৈঠিকে বসতে যাচ্ছেন জোট নেতৃবৃন্দ সে প্রত্যাশা করাই যায়। আমরা আশাবাদী এই বৈঠকের মধ্যে দিয়ে ১৪ দলীয় জোট সক্রিয় হয়ে উঠবে। দেশের মানুষ যা চায়।

Exit mobile version