১৪ লাখ কর্মসংস্থান হলেও বেকার কমেনি

আপডেট: মে ২৯, ২০১৭, ১২:১২ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


দেশে নতুন করে ১৪ লাখ মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হলেও বেকারের সংখ্যা কমেনি বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিবিএস)।
২০১৫ সালের জুন শেষে দেশে কাজ পাওয়া মানুষের সংখ্যা বেড়ে ৫ কোটি ৯৫ লাখে দাঁড়িয়েছে, যা ২০১৩ সাল শেষে ছিল ৫ কোটি ৮১ লাখ।
রোববার প্রকাশিত ত্রৈমাসিক শ্রম শক্তি জরিপ ২০১৫-১৬ প্রতিবেদনে এ তথ্য তুলে ধরা হয়েছে।
রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বিবিএসের সম্মেলনকক্ষে সাংবাদিকদের সামনে প্রতিবেদনটি উপস্থাপন করেন পরিচালক কবির উদ্দিন আহমেদ।
তিনি বলেন, ২০১৫ সালের জুলাই থেকে ২০১৬ সালের জুন পর্যন্ত একবছরব্যাপী এক লাখ ২৩ হাজার খানা থেকে বিবিএস তথ্য সংগ্রহ করেছে। এর আগে ২০১৩ সালের জরিপে মাত্র ৩৬ হাজার খানা থেকে তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছিল।
“নতুন জরিপটি কলেবর বাড়িয়ে পরিচালনা করা হয়েছে।”
বিবিএস নতুন জরিপ অনুযায়ী, দেশে মোট ৬ কোটি ২১ লাখ শ্রমশক্তির মধ্যে ২৬ লাখ লোক বেকার রয়েছে। বাকি ৫ কোটি ৯৫ লাখ মানুষের হাতে কাজ আছে।
কবির উদ্দিন বলেন, আগের জরিপের তুলনায় বেকারের সংখ্যা বাড়েনি, অপরিবর্তিতই রয়েছে। ২০১৩ ও ২০১০ সালের জরিপেও বেকারের সংখ্যা ২৬ লাখ ছিল।
সর্বশেষ জরিপ অনুযায়ী, দেশে ১৫ বছরের বেশি বয়সী জনসংখ্যা ১০ কোটি ৬১ লাখ, যাদের মধ্যে ৬ কোটি ২১ লাখ কর্মক্ষম।বাকি ৪ কোটি ৪০ লাখ মানুষ শ্রম শক্তির আওতার বাইরে রযেছে।
কবির উদ্দিন বলেন, ২০১৩ সালের শ্রম জরিপের তুলনায় ৪ দশমিক ২ শতাংশ শ্রমশক্তি বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০১৫ সালে শ্রমবাজারে কর্মক্ষম মানুষের সংখ্যা ১৪ লাখ বেড়ে ৬ কোটি ২১ লাখে বেড়ে দাঁড়িয়েছে।
জরিপ প্রকাশের অনুষ্ঠানে অনুষ্ঠানে বিশ্বব্যাংকের আবাসিক প্রতিনিধি চিমিয়াও ফান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব মো. মোজাম্মেল হক উপস্থিত ছিলেন।
চিমিয়াও ফান বলেন, “বাংলাদেশের শ্রম বাজারে মহিলাদের অংশগ্রহণ বাড়ছে এটি খুবই ইতিবাচক। এসব ভাল দিক প্রবৃদ্ধি বাড়ানোর সুযোগ কাজে লাগানো উচিত।”
তথ্যসূত্র: বিডিনিউজ