১৬ ঘণ্টা বাড়িতে পড়ে রইল করোনায় মৃত বৃদ্ধার দেহ, করুণাময়ীতে চাঞ্চল্য

আপডেট: মে ৯, ২০২১, ১:৩৩ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


১৬ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে বাড়িতেই পড়ে রইল করোনায় মৃত এক বৃদ্ধার দেহ। সল্টলেকের করুণাময়ী আবাসনে চাঞ্চল্য। একই পরিবারের অন্য সদস্যরাও করোনায় আক্রান্ত। তাঁদের অভিযোগ, প্রথমে প্রশাসনের সাহায্য চেয়েও মেলেনি। ১৬ ঘণ্টা পর বিধাননগর পুরনিগমের শববাহী যান এসে দেহ উদ্ধার করে নিয়ে যায়।
সল্টলেকের করুণাময়ী আবাসনের বাসিন্দা গীতা কুমার। পরিবারে তিনি ছাড়াও রয়েছেন আরও ৫ সদস্য। সূত্রের খবর, বেশ কয়েকদিন ধরে করোনা আক্রান্ত ছিলেন ওই বৃদ্ধা। করোনা আক্রান্ত তাঁর পরিবারের অন্য সদস্যরাও। শনিবার সন্ধে ৬টা নাগাদ মারা যান বৃদ্ধা গীতা কুমার। পরিবারের অভিযোগ, ঘটনার পর থেকে পুলিশ ও প্রশাসনকে ফোন করেন তাঁরা। কোভিডে মৃত রোগীর দেহ উদ্ধারে তাঁদের সাহায্য চান। কিন্তু নিরাশ হতে হয়। মেলেনি পুলিশ বা প্রশাসনের কোনও সাহায্য।
রোববার সকালে এই খবর জানাজানি হতেই এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়ায়। স্থানীয়দের দাবি, ওই পরিবার যে কোভিড আক্রান্ত, বিষয়টি তাঁরা জানতেন না। এমনকি, গীতা কুমার যে গতকাল মারা গিয়েছেন, তাও তাঁরা জানতেন না। যথারীতি মৃৎয়ুর খবর ছড়িয়ে পড়তেই এলাকায় চাঞ্চল্য় ছড়ায়। বিধাননগর পূর্ব থানা এবং বিধাননগর পুরনিগমের দ্বারস্থ হন এলাকাবাসী। প্রায় ১৬ ঘণ্টা পর এলাকায় আসে বিধাননগর পুরনিগমের শববাহী যান। পুরনিগমের কর্মীরাই দেহ উদ্ধার করে নিয়ে যান।
তথ্যসূত্র: ২৪ঘণ্টাডটকম

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ