২২ রানে ৫ উইকেট পতন, অতঃপর…

আপডেট: এপ্রিল ৩০, ২০১৭, ১২:১০ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



যখন তিনি উইকেটে এলেন, ২২ রানেই ৫ উইকেট হারিয়ে ধুঁকছে দল। ২৯১ রান তাড়া করতে নামা কোনো দল কি তখন আর জয়ের কথা ভাবতে পারে? সমারসেটও হয়তো ভাবেনি। কিন্তু এরপর যা ঘটল, সেটা একরকম অবিশ্বাস্য। সাতে নেমে অপরাজিত ১৬৫ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস খেললেন রোয়েলফ ফন ডার মারউই। তাতে রয়্যাল লন্ডন ওয়ানডে কাপে সারের বিপক্ষে সমারসেট পেল ৪ উইকেটের অবিশ্বাস্য জয়।
টাউনটনের কাউন্টি গ্রাউন্ডে কাল আগে ব্যাট করতে নামা সারেকে ২৯০ রানে বেঁধে ফেলেছিল সমারসেট। সারের ইনিংসে সর্বোচ্চ ৯২ রান বেন ফোকসের। জবাবে ব্যাটিংয়ে নেমে সাত ওভারের মধ্যে ২২ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে ভীষণ বিপদে পড়ে যায় সমারসেট। এরপরই মারউইয়ের লড়াই শুরু। ষষ্ঠ উইকেটে তিনি ডিন এলগারকে নিয়ে গড়েন ২১৩ রানের অসাধারণ এক জুটি। এলগার ৬৮ করে ফিরলেও মারউই ৩৭ বল বাকি থাকতে দলকে জিতিয়ে তবেই মাঠ ছাড়েন।
৪৪ বলে ফিফটি করা মারউই পরের পঞ্চাশ করেছেন ৩৩ বলে। ৭৭ বলে সেঞ্চুরি ছুঁতে হাঁকিয়েছেন ১৫টি চার। শেষ পর্যন্ত ১২২ বলে ২৪ চার ও এক ছক্কায় অপরাজিত ১৬৫ রানের ইনিংসটি সাজান ৩২ বছর বয়সি ব্যাটসম্যান। এটি ঘরোয়া লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে সাত নম্বরে নামা ব্যাটসম্যানের সর্বোচ্চ ইনিংস এবং সমারসেটের কোনো খেলোয়াড়ের চতুর্থ সর্বোচ্চ ইনিংস। লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে মারউইয়ের প্রথম সেঞ্চুরিও এটিই।
এমন দুর্দান্ত ইনিংস খেলার পর মারউই বলেছেন, ‘২২ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে আমরা মূলত ম্যাচ থেকেই ছিটকে পড়েছিলাম এবং সেখানে ব্যাটিংয়ের স্বাধীনতা ছিল। যখন আমাদের এক বলে এক রান করে দরকার, তখন আমরা কেবল বল মাটিতে খেলার চেষ্টা করেছি।’
মারউইয়ের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক ২০০৯ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে। দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে ১৩টি করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন। কিন্তু ২০১০ সালের পর দীর্ঘদিন দলে জায়গা না পাওয়ায় তিনি নেদারল্যান্ডের নাগরিকত্ব নেন। ২০১৫ সাল থেকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে খেলছেন নেদারল্যান্ডের হয়ে। ভারতে অনুষ্ঠিত ২০১৬ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ডাচদের জার্সিতেই খেলেছেন এই অলরাউন্ডার। তথ্যসূত্র : ক্রিকইনফো, সমারসেট।