২৮ জুলাই

আপডেট: July 28, 2020, 12:05 am

২৮ জুলাই ১৯৪৯ : বঙ্গবন্ধু কারাগার থেকে মুক্তি লাভ করেন। পাকিস্তানে এই প্রথমবারের মতো তিনি জেলে নির্যাতন ভোগ করেছিলেন। উল্লেখ্য, বিশ্ববিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীদের আন্দোলনের একাত্মতা প্রকাশ করায় ছাত্ররা প্রতিবাদ করেছিল। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ছাত্রনেতাদের বিভিন্ন ধরনের শান্তি ঘোষণা করে। শেখ মুজিবুর রহমান, নঈমুদ্দিন আহমদ, কল্যাণ দাশগুপ্ত, মিস নাদেরা বেগম ও আবদুল ওদুদকে ১৫ টাকা জরিমানা করা হয়েছিল। বিভিন্ন হল থেকে মোল্লা জালাল, আবদুস সামাদসহ ১৪ জনকে বহিষ্কার করা হয়। অলি আহাদ ও দবিরুল ইসলামসহ ৬ জনকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার করা হয়। ছাত্ররা এই শাস্তির বিরুদ্ধে অবস্থান ধর্মঘট চালিয়ে যাচ্ছিল। ১৯৪৮ সালের ২০ এপ্রিল হরতাল ডাকা হয়, হরতালের সময় শেখ মুজিব গ্রেফতার হন। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ছাত্রদের কাছ থেকে জরিমানা ও মুচলেকা আদায় করে তাদের ছেড়ে দেন। কিন্তু শেখ মুজিব জরিমানা দেন নি এবং মাফ চেয়ে মুচলেকাও দেন নি।
২৮ জুলাই ১৯৭০ : নির্বাচনে শান্তিপূর্ণভাবে অংশগ্রহণের আহ্বান জানিয়ে প্রেসিডেন্ট ইয়াহিয়া এক বেতার ভাষণ দেন। ভাষণে তিনি বলেন যে, সামরিক শাসন জারি করা সত্ত্বেও তিনি রাজনৈতিক দল নিষিদ্ধ করেন নি। ভাসানী ন্যাপ কাউন্সিল অধিবেশনে নির্বাচনে অংশগ্রহণের প্রস্তাব গ্রহণ করে। পূর্ব পাকিস্তানে বন্যার কারণে নির্বাচন ফেব্রুয়ারিতে পিছানোর দাবি করা হয়। শেখ মুজিব নির্বাচন পিছানোর দাবির বিরোধিতা করেন। তিনি বলেন, পূর্ব পাকিস্তানে প্রতি বছরই বন্যা হয়। গত ২৩ বছরে বন্যা নিয়ন্ত্রণের কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয় নি। বন্যার অজুহাত দেখিয়ে নির্বাচন পিছানো চলবে না।