৩০০ ছাড়ানো স্কোরকে নিরাপদ ভাবছেন মিরাজ

আপডেট: আগস্ট ২৯, ২০১৭, ১২:৪৫ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ পায় ৪৩ রানের লিড। মিরপুর টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে দ্বিতীয় দিন শেষ করেছে স্বাগতিকরা ১ উইকেটে ৪৫ রানে। এই সংগ্রহ আরও এগিয়ে নিতে মঙ্গলবার দিন শুরু করবেন তামিম ইকবাল ও নাইট ওয়াচম্যান হিসেবে নামা তাইজুল ইসলাম। ঠিক কত রানকে নিরাপদ মনে করছে বাংলাদেশ- সোমবার সংবাদ সম্মেলনে এমন প্রশ্নে মেহেদী হাসান মিরাজ জানিয়েছেন, ৩০০ রানের বেশি করতে চায় টাইগাররা দ্বিতীয় ইনিংসে।
ঢাকা টেস্টের দুই দিন পেরিয়ে গেছে। এই দুই দিনে চালকের আসনে ছিল বাংলাদেশ। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে জিততে গেলে তৃতীয় দিনটি বাংলাদেশকে নিজেদের করে নিতে হবে। আর এ জন্য টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানদের দায়িত্ব নিতে হবে বলে মনে করেন মিরাজ। বাংলাদেশি অলরাউন্ডারের বিশ্বাস, তাদের ব্যাটসম্যানরা দ্বিতীয় ইনিংসে প্রত্যাশিত ব্যাটিং করে দলের স্কোরবোর্ডকে এগিয়ে নিয়ে যাবেন। এরপরও ঠিক কত স্কোরকে নিরাপদ মনে করছেন, এমন প্রশ্নে মিরাজের জবাব, ‘আসলে সুনির্দিষ্ট কিছু নেই। আমাদের লক্ষ্য অনেক বড় স্কোর গড়া। অনেক ব্যাটসম্যান এখনও আছে, কালকে (মঙ্গলবার) ব্যাটিং করতে পারবে। যে রানই হোক, সেটা নিয়ে আমরা লড়ব। নির্দিষ্ট করে বলতে পারব না, তারপরও আমি মনে করি ৩০০ প্লাস রানের সঙ্গে লিড মিলে যা হবে, তাতেই লড়াই করা সম্ভব।’
প্রথম দিনে বাংলাদেশের সেরা পারফরমার ছিলেন সাকিব। দ্বিতীয় দিনেও উজ্জ্বল ছিলেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। তার সঙ্গে মিরাজও ছিলেন দুর্দান্ত। বল হাতে ৬২ রানে ৩ উইকেটে নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখা এই অলরাউন্ডার বলেছেন, ‘এখন পর্যন্ত আমাদের পক্ষেই আছে ম্যাচ। আশা করি আরও ভালো করব। কালকের দিনটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ। ব্যাটসম্যানরা সবাই দায়িত্ব নিয়ে ভালো খেলতে পারলে বড় লক্ষ্য দিতে পারব, তখন ওদের জন্য ম্যাচটা চ্যালেঞ্জিং হয়ে যাবে।’
মিরপুরের উইকেটে প্রথম দিনের চেয়ে দ্বিতীয় দিনে ব্যাটিং করা খানিকটা কঠিন হয়ে গেছে। তৃতীয় দিনের উইকেট নিয়ে মিরাজের বক্তব্য, ‘আমার কাছে মনে হয় অত কঠিন না উইকেট। তারপরও মাঝেমধ্যে তো কঠিন হয়ই। বল একটু টার্ন করলে অনেক কিছু হয়।’
দ্বিতীয় দিনের শুরুতেই মিরাজ তুলে নেন অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথের উইকেট। পরের দিকে ব্যাটসম্যানদেরও সুবিধা করতে না দেওয়ায় বাংলাদেশ পায় ৪৩ রানের। সফরকারীদের ব্যাটিং ধসে কৃতিত্বটা সবার মাঝেই ভাগ করে দিলেন তরুণ এই অলরাউন্ডার, ‘আমাদের বোলাররা খুব ভালো বোলিং করেছে। উইকেট যে রকমই হোক না কেন, বোলাররা ভালো জায়গায় বোলিং না করলে উইকেট পাওয়া অনেক কঠিন। সাকিব ভাই অসাধারণ বোলিং করেছেন। আমি কিছু ভূমিকা রেখেছি। তাইজুল ভাইও অবদান রেখেছেন।’
উইকেটহীন থাকা মোস্তাফিজেরও প্রশংসা ঝরল তার মুখে, ‘মোস্তাফিজ উইকেট না পেলেও ব্যাটসম্যানদের চাপে রাখতে পেরেছে। যে কোনও উইকেটেই বোলাররা দায়িত্ব নিয়ে বোলিং করলে ব্যাটসম্যানদের জন্য কাজটা কঠিন হয়ে যায়।’