৪০ বছর পর রাস্তা পেল নওগাঁর ভীমপুরবাসী

আপডেট: জুন ১৮, ২০১৭, ১:০৭ পূর্বাহ্ণ

নওগাঁ প্রতিনিধি


স্বেচ্ছাশ্রমে রাস্তা নির্মাণ করছেন ভীমপুরবাসী-সোনার দেশ

দেড় কিলোমিটার রাস্তার জন্য দুইশো লোক অনেকটা অবরুদ্ধ জীবন যাপন করছিল । বর্ষা মানেই আর এক নতুন যুদ্ধ। কাদা পানির সাথে এ যুদ্ধ ৫ গ্রামের মানুষ তাদের নিয়তি হিসেবে মেনে নিয়েছিল ।
কিন্ত এ দুঃসহ জীবনের অবসান ঘটলো গত ১৬ জুন শুক্রবার । নওগাঁর ভীমপুর ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের কয়েকটি গ্রামের এমন চিত্র । গত শুক্রবার এ অবসান ঘটান এ গ্রামের এক এনামুল হক সুজন । ৯ নম্বর ওয়ার্ডের জন প্রতিনিধি এনামুল হক সুজন তার এলাকার সাধারণ মানুষকে নিয়ে দেড় কিলোমিটার সড়ক নির্মাণে এগিয়ে আসেন । প্রায় দেড় কিলোমিটার এ সড়ক তৈরির কাজে পাতনা, বরুন কান্দি, আবাদপুর, গয়েরপাড়া গ্রামের দুইশো লোক স্ব উদ্যেগে নেমে পড়েন । তারা মাটি কেটে তৈরি করেন রাস্তা। দেড় কিলোমিটার এ রাস্তা নির্মাণে সকাল ৭ টা থেকে শুরু করে দুপুরের মধ্যে শেষ হয় । স্থানীয় গ্রামবাসী তারিকুল ইসলাম, আতাউর রহমান, মাহরাম হোসেন, জাহের আলী শমসের আলী জানান, শুধু মাত্র সড়কের অভাবে এ গ্রামের মেয়েদের ভাল জায়গায় বিয়ে দেওয়া যায় না । বেগুন, পটল আলুসহ অনেক উৎপাদিত ফসলের সঠিক দাম পাওয়া যেত না । এখন সড়ক হলো এখানে ৫ গ্রামের মানুষের নতুন দিনের স্বপ্ন দেখছে। স্থানীয় ভীমপুর ইউপি চেয়ারম্যান রাম প্রসাদ ভদ্র জানান, সড়কটি নির্মাণের জন্য অনেকবার বরাদ্দ চাওয়া হয় । কিন্ত এবার ৪০ দিনের কর্মসৃজন প্রকল্প বরাদ্দ তাদের প্রনোদনা দেয়। মাটি দিয়ে প্রাথমিক পর্যায়ে দেড় কিলোমিটার এ সড়ক তৈরি করার ফলে এখন ৫ গ্রামের মানুষ আর অবরুদ্ধ থাকবে না । সুজন জানান গ্রামের মানুষের এ দুর্দশা গত ৪০ বছর ধরেই চলছিল । এতোদিন গ্রাম বাসীকে সংগঠিত করা যেত না । এখন সবাই সবার জন্য এগিয়ে এসেছে এটা বড় পাওয়া । আগামীতে এমন সংকল্প নিয়ে গ্রামবাসী তাদের সব সমস্যা সমাধান করবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন । কয়েকজন গ্রামবাসীর সাথে কথা বলে জানা গেছে তাদের রাস্তা পাওয়ায় বেশ খুশি ।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ