৪৫ শতাংশ আইনজীবীই ভুয়ো: বার কাউন্সিল

আপডেট: জানুয়ারি ২৪, ২০১৭, ১২:০৩ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


আদালত চত্বরে আইনজীবীর পোশাক পরে ঘুরে বেড়ান অনেকেই। এমনকী আদালত কক্ষে সওয়াল জবাবে যোগও দেন তাঁরা। তাঁদের সওয়ালে নানা গুরুত্বপূর্ণ মামলার ফায়সালাও হয়েছে। অথচ তথ্য বলছে, এই আইনজীবীদের প্রায় অর্ধেকই ভুয়ো। দু’বছর আগে সদস্যদের ডিগ্রি এবং নথি যাচাই শুরু করে বার কাউন্সিল অব ইন্ডিয়া (বিসিআই)। গত সপ্তাহে বিসিআই প্রধান মনন কুমার মিশ্র সুপ্রিম কোর্টের প্রাক্তন বিচারপতি জেএস কেহরকে জানিয়েছেন, তাঁদের নথি যাচাই প্রক্রিয়ার ফলে প্রকৃত আইনজীবীর সংখ্যা ৫৫ থেকে ৬০ শতাংশে নেমে এসেছে। যার অর্থ দেশের ৪০ থেকে ৪৫ শতাংশ আইনজীবী ভুয়ো। কেহরের সম্মানে অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল বিসিআই। মিশ্র আরও বলেছেন, এই সাফাই অভিযানের ফলে আইন পেশার গুণগত মান বাড়বে। তাঁর কথায় বিসিআইতে ১৪ লক্ষ নথিভুক্ত ভোটার রয়েছে। যাচাই প্রক্রিয়া শুরু করার পর তা নেমে ৬.৫ লক্ষে নেমে এসেছে। বৈধ ডিগ্রি বা কাগজপত্র না থেকেও কীভাবে এঁরা কাজ করেন? জানা যাচ্ছে, এঁদের অনেকেই রাজ্য বার কাউন্সিলে নাম লেখায়। তাঁরা হাইকোর্ট বা নিম্ন আদালতে কাজ করেন। তাঁদের কাগজপত্র যাচাই করা হয় না। অনেকে আদালত চত্বরে ঘুরে বেড়ানোয় পরিচিত মুখ। তাঁদের নিয়ে কেউ সন্দেহ প্রকাশ করে না। বিসিআইএর উদ্যোগের প্রশংসা করে প্রধান বিচারপতি কেহর বলেন, ‘এটা কেবল ভুয়ো ডিগ্রি দাখিলের ব্যাপার নয়, ডিগ্রি না থাকাদেরও খুঁজে বার করতে হবে। লাইসেন্স ছাড়াও মানুষ কাজ করছে। আমাদের আরও আগে বিষয়টি নিয়ে উদ্যোগী  হওয়া উচিত ছিল।’- আজকাল