৫ কারণ: কী ভাবে বিশ্বকাপে পাকিস্তানকে হারাল ভারত

আপডেট: জুন ১০, ২০২৪, ১২:২০ অপরাহ্ণ


সোনার দেশ ডেস্ক :


টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দ্বিতীয় ম্যাচে পাকিস্তানকে ৬ রানে হারিয়ে দিল ভারত। মাত্র ১১৯ রানের পুঁজি নিয়েও জিতল তারা। মূলত বোলারদের পারফরম্যান্সের কারণেই জিতল ভারত। তবে জয়ের নেপথ্যে আরও বেশ কয়েকটি কারণ রয়েছে। তার মধ্যেই পাঁচটি কারণ খুঁজে নিল আনন্দবাজার অনলাইন।

পাকিস্তানের বিরুদ্ধে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে মাত্র ১১৯ রান পুঁজি ছিল ভারতের। মাত্র তিন জন ভারতীয় ব্যাটার দু’অঙ্কের রান পেরোতে পেরেছেন। তার মধ্যে ঋষভ পন্থের ৪২ রান খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সেটি না হলে ভারত একশোর গন্ডিও পেরোয় না। তিনে নেমে পন্থকে যে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল সেটা ভাল ভাবেই পালন করেছেন। বিরাট কোহলিকে শুরুতে হারানোও প্রভাব ফেলেনি।

পাকিস্তানের পরিকল্পনার অভাব
এত অল্প রানের লক্ষ্য থাকা সত্ত্বেও জিততে পারল না পাকিস্তান। রান তাড়া করার সময় কোনও পরিকল্পনাই ছিল না প্রতিপক্ষ দলের ব্যাটারদের। কার কী ভূমিকা কিছুই যেন বলে দেওয়া হয়নি। ফলে নিজেদের ইচ্ছা মতো ভুলভাল শট খেলে উইকেট খোয়ালেন ব্যাটারেরা। কেউ রান করার দায়িত্ব কাঁধে তুলে নিতে পারেননি।

ডেথ ওভারে ভারতের বোলিং
১৫ ওভারে পাকিস্তানের রান ছিল ৮৩-৪। অর্থাৎ পাঁচ ওভারে দরকার ছিল ৩৭ রান। টি-টোয়েন্টিতে অনায়াসে তোলার মতো স্কোর। সেটাও পারল না পাকিস্তান। সৌজন্যে ডেথ ওভারে ভারতের বোলিং। ১৬ থেকে ২০ ওভারে ভারত দিয়ে যথাক্রমে ২, ৫, ৯, ৩ এবং ১১ রান। অর্থাৎ শেষ ওভার বাদে তারা কোনও ওভারে ১০ রানও তুলতে পারেনি।

রোহিতদের ব্যর্থতা ঢেকে দিলেন বুমরারা, ১১৯ রান করেও বিশ্বকাপে ৬ রানে পাকিস্তানকে হারাল ভারত
ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ মানে যে দিন যে দল ভাল খেলবে তারাই জিতবে। বিশেষজ্ঞেরাই সে কথা বলে থাকেন। তা অক্ষরে অক্ষরে ফলে গেল রবিবার। চাপের মুখে ভারতীয় ক্রিকেটারেরা নিজেদের স্নায়ু ধরে রাখলেন।

যখন অনেকেই ধরে নিয়েছেন ম্যাচ ভারতের হাত থেকে বেরিয়ে গিয়েছে, তখন ভারতীয়রা একে অপরের উপর ভরসা রেখেছিলেন। তাই শেষ ওভারে যশপ্রীত বুমরার বদলে তার আগের ওভারে নিয়ে আসেন রোহিত। শেষ ওভারে রাখেন আরশদীপ সিংহ। আরশদীপ চাপ সামলে ভাল বল করে দলকে জিতিয়ে দেন।

নিয়মিত ব্যবধানে পাকিস্তানের উইকেট তোলা
অল্প রানের পুঁজি থাকলে যেটা দরকার, সেটাই করেছে ভারত। কোনও লম্বা জুটি গড়তে দেয়নি পাকিস্তানকে। দ্বিতীয় উইকেটে উসমান খান এবং মহম্মদ রিজওয়ানের ৩১ রানের জুটি বাদে আর কেউ উইকেটে দাঁড়াতে পারেননি।
তথ্যসূত্র: আনন্দবাজার অনলাইন