৭ এপ্রিল

আপডেট: এপ্রিল ৭, ২০২০, ১২:২৮ পূর্বাহ্ণ

৭ এপ্রিল ১৯৬৬। দুপুর বেলা। দেড় কী পৌনে দুটো বাজে। পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুর রব বগা মিয়ার বাসায় এলেন বঙ্গবন্ধু। উদ্দেশ্য ৬ দফার প্রচারণা জনসভায় যোগ দেয়া। ছয় দফাকে স্বাধীনতার সিঁড়ি ভাবতেন জাতির পিতা। বলতেন ‘ছয় দফায় যে পূর্ব পাকিস্তানের সাড়ে পাঁচ কোটি শোষিত-বঞ্চিত আদম সন্তানের কথাই প্রতিধ্বনিত হইয়াছে, তাতে আমার কোন সন্দেহ নেই।’
অধিকার আদায়ের এ চিন্তা থেকেই ৬ দফার আন্দোলন দেশব্যাপী প্রচার করতে শুরু করেন বঙ্গবন্ধু। সেই ধারাবাহিকতায় পাবনায় (টাউন হল) সমাবেশ করতে আসা। উক্ত সভায় বঙ্গবন্ধু ও তার সহকর্মী এম মনসুর আলী, এএইচএম কামারুজ্জামানসহ অন্যান্য নেতারাও উপস্থিত ছিলেন।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহান আল্ল¬াহর সর্বময়ক্ষমতায় বিশ্বাস করতেন। তিনি জানতেন, আল্ল¬াহর ইচ্ছার সামনে মানুষ কতো অসহায়। তাই তো তিনি ১৯৭৩ সালের ৭ এপ্রিল শনিবার সকাল ১০ ঘটিকার সময় স্পিকার মুহম্মদুল্ল¬াহর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশনে বাংলাদেশের গণপরিষদ সদস্য আবদুর রব (বগা মিয়া) এর মৃত্যুতে শোক প্রস্তাবের ওপর আলোচনা করতে গিয়ে বলেন, ‘তাঁর এই মর্মান্তিক মৃত্যুকে আমার কাছে এমন কিছু নাই যে তাঁর ছেলেমেয়েদেরকে সান্ত্বনা দেব। আমি বক্তব্য পেশ করার সময় বার বার শুধু ‘বগা মিয়া’ বলছি কারণ দেশের লোক তাঁকে বগা মিয়া বলেই জানত। আমি শুধু বলতে পারি যে, মানুষকে জীবনে দুঃখ-কষ্ট বরণ করে নিতে হয় এবং অনেক কিছুই সহ্য করে নিতে হয়। খোদার ইচ্ছার বিরুদ্ধে কিছুই করার নাই আমার। [সূত্র: ইসলামের আলোকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব, মাওলানা মোহাম্মদ মাকছুদ উল্ল¬াহ]
১৯৯৭ সালের ৭ এপ্রিল বঙ্গবন্ধু হত্যার আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়।