৯ এপ্রিল

আপডেট: এপ্রিল ৯, ২০২০, ১২:৩৫ পূর্বাহ্ণ

১৯৪৪ সালের ৯ এপ্রিল প্রতিষ্ঠিত হয় মুসলিম লীগের ওয়ার্কশপ ক্যাম্প। ১৯৪৪ সালের ৯ এপ্রিল প্রতিষ্ঠিত এই ক্যাম্পের সার্বক্ষণিক দায়িত্বে ছিলেন শামসুল হক (টাঙ্গাইল)। পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার পর এই ক্যাম্পটিকে ঘিরে প্রতিবাদী মুসলিম লীগ কর্মীরা সংগঠিত হন। মওলানা আকরম খাঁ তখন পূর্ববঙ্গ মুসলিম লীগের সভাপতি।
১৯৪৬ সালের ৭-৯ এপ্রিলে দিল্লিতে মুসলিম লীগের কেন্দ্রীয় ও প্রাদেশিক সদস্যদের এক কনভেনশন ডাকেন মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ। দলবল নিয়ে তাতে যোগ দেন হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী। দলে ছিলেন ২৬ বছরের টগবগে তরুণ শেখ মুজিবুর রহমান।
১৯৬৬ সালের ৯ এপ্রিল ৬ দফা দাবি ও ব্যাখ্যা নিয়ে বঙ্গবন্ধু রংপুরে জনসভা করেন। বিপুল জনতার উপস্থিতিতে বঙ্গবন্ধু ৬ দফা দাবি পূর্ব বাংলার জন্য কেন প্রয়োজন তার ব্যাখ্যা তুলে ধরেন। জনসভায় উপস্থিত জনতা তুমূল করতালির মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গবন্ধুর ৬ দফার প্রতি জোরালো সমর্থন দেন।
১৯৭২ সালের ৯ এপ্রিল যুক্তরাষ্ট্রের বাংলাদেশকে স্বীকৃতি প্রদান বিষয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এক পত্রের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট রিচার্ড নিক্সনকে অবগত করেন যে বাংলাদেশকে যুক্তরাষ্ট্রের স্বীকৃতির মাধ্যমে বাংলাদেশসহ পূর্বাঞ্চলীয় অঞ্চল স্বীকৃতিপ্রাপ্ত হলো।
১৯৭২ সালের ৯ এপ্রিল ঢাকাতে আয়োজিত আওয়ামী লীগ এর স্বাধীনতা উত্তর প্রথম কাউন্সিল অধিবেশনে দেয়া বক্তৃতায় বঙ্গবন্ধু বলেন, “শোষণহীন সমাজ গড়ে তুলতে হবে। আমাদের নীতি কই? নীতির সঙ্গে আপোস হয় না। সেই জন্য জীবনের প্রসঙ্গে আপোস করতে পারি না। দরকার হলে, দলের লোকজন যারা বেঈমানি করে, তাদের সঙ্গে আমি আপোস করতে রাজি নই। লোভের উর্ধ্বে উঠতে হবে। লোভ যেখানে, ধ্বংস সেখানে। একবার যদি কেউ লোভি হয়ে যান, সে জীবনে আর মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে পারবে না শুধু আপনার মুখে কালি দেবেন না কালি দেবেন না এই দেশের সাড়ে ৭ কোটি মানুষের মুখে।’’ [সূত্রঃ ‘‘ইসলামের আলোকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব’’ মাওলানা মোহাম্মদ মাকছুদ উল্লাহ]