ইঞ্জিন বিকল হয়ে ৩ ঘণ্টা পথে পড়ে ছিল ট্রেন

আপডেট: অক্টোবর ২১, ২০২৩, ১:০৬ অপরাহ্ণ


নাটোর প্রতিনিধি:


রাজশাহী থেকে চিলাহাটিগামী আন্তঃনগর বরেন্দ্র এক্সপ্রেস ট্রেনের ইঞ্জিন বিকল হয়ে নাটোরের ইয়াসিনপুর-মালঞ্চি স্টেশনের মাঝপথে প্রায় সাড়ে তিনঘণ্টা পড়ে ছিল। শুক্রবার (২০ অক্টোবর) বিকেল চার টার দিকে ইয়াছিনপুর স্টেশন থেকে ৩ কি.মি. এবং মালঞ্চি স্টেশন থেকে চার কি.মি দূরে স্বরূপপুর লেভেল ক্রসিঙের কাছে ইঞ্জিন বিকল হয়ে যায়।

এসময় নাটোর স্টেশনে অন্তত চারটি ট্রেন আটকা পড়ে। নাটোর থেকে ঢাকা-রাজশাহী-খুলনার মধ্যে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এতে করে মাঝপথে পড়ে থাকা বরেন্দ্র এক্সপ্রেস ট্রেনসহ নাটোর স্টেশনে আটকাপড়া ট্রেনের শত শত যাত্রিকে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে। প্রায় দু’ঘণ্টা পর পঞ্চগড় থেকে রাজশাহীগামী বাংলাবান্ধা এক্সপ্রেস ট্রেনের ইঞ্জিন গিয়ে মাঝপথে পড়ে থাকা বরেন্দ্র এক্সপ্রেস ট্রেনকে নাটোর স্টেশনে নিয়ে আসে। এসময় নাটোর স্টেশনে আটকাপড়া কয়েকটি ট্রেন গন্তব্যের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। পরে সন্ধ্যা ৭টার দিকে ঈশ্বরদী থেকে একটি ইঞ্জিন এসে বরেন্দ্র এক্সপ্রেস ট্রেনটিকে নিয়ে চিলাহাটির উদ্দেশ্যে নাটোর ছাড়ে।

স্বরাপপুর লেভেল ক্রসিঙে দায়িত্বরত গেইটম্যান শরিফুল ইসলাম জানান, গাড়িটি নাটোরের দিকে আসার সিগনাল পাওয়ার ক্রসিং নামিয়ে দেই। কিন্তু গাড়িটির ইঞ্জিন বিকল হওয়ায় লেভেল ক্রসিঙের ওপর এসে থেমে যায়। এসময় ঘটনা জানার পর নাটোর স্টেশনকে বিষয়টি অবহিত করি। পরে নাটোরের দিক থেকে অন্য একটি ইঞ্জিন এসে গাড়িটিকে টেনে নিয়ে যায়।

ট্রেনের যাত্রিরা জানায়, তারা রাজশাহী থেকে ট্রেনে ওঠেন। পথের মধ্যে ট্রেনের ইঞ্জিন বিকল হওয়ায় পথের মধ্যেই প্রায় ৩ ঘণ্টা পড়ে থাকতে হয়েছে। এসময় ভোগান্তি আর অসহনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হয় তাদের।
ট্রেনের গার্ড বা পরিচালকের সাথে কথা বলতে চাইলে তারা কথা বলেননি।

নাটোর স্টেশনে কর্মরত স্টেশন মাস্টার রেজাউল করিম জানান, খবর পাওয়ার পর ঈশ্বরদীতে জানানো হয়। উর্ধতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশ পাওয়ার পর ৫:৪০ মিনিটের দিকে বাংলাবান্ধা এক্সপ্রেস ট্রেনের ইঞ্জিন গিয়ে বরেন্দ্র এক্সপ্রেস ট্রেনটিকে নাটোরে নিয়ে আসার পর লাইন ক্লিয়ার হয়। এ সময় পঞ্চগড় থেকে আসা রাজশাহীগামী বাংলাবান্ধা এক্সপ্রেস, ঢাকাগামী পঞ্চগড় এক্সপ্রেস ট্রেন ও আরো দুটি লোকাল ট্রেন নাটোর স্টেশনে আটকা পড়ে। বরেন্দ্র ট্রেনকে নাটোর আনার পর লাইন ক্লিয়ার হলে আটকাপড়া ট্রেনগুলো গন্তব্যের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। পরে সন্ধ্যা ৭টার দিকে ঈশ্বরদী থেকে ইঞ্জিন আসার পর বরেন্দ্র এক্সপ্রেস ট্রেন চিলাহাটির উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ