খাবারের জন্য প্লাস্টিকের পাত্র নির্বাচন করবেন যেভাবে

আপডেট: মে ২৮, ২০১৭, ১:১০ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


মজার মজার খাবারের নাম শুনলেই জিবে জল চলে আসে। খাবার ছাড়া আমাদের একটি দিনও পার করা সম্ভব নয়। মানব শরীরের চালিকাশক্তি হচ্ছে এই খাবার। তাইতো খাবারের আনা হয় নানা ধরনের বৈচিত্র। খাবার কখনো ভিটামিনের উৎস, আবার কখনো খনিজ আবার প্রোটিন। খাবারের এই সূক্ষ্ম সূক্ষ্ম বিষয়গুলো আমাদের শরীরের যেভাবে খেয়াল রাখে তা আর কিছুর পক্ষেই সম্ভব নয়।
আপনি আপনার আশেপাশে তাকালে বুঝতে পারবেন যে আপনার আশেপাশে ভোজন রসিক মানুষদের অভাব নেই। সবার হয়তো সব ধরনের খাবার পছন্দ নয়। কারো কাছে ঝাল টক, আবার কারো কাছে মিষ্টি আবার কারো কাছে শুধুই ঝাল খুব প্রিয় খাবার। অঞ্চল এবং দেশ ভেদেও খাবারের চাহিদা, ধরন আর স্বাদের মধ্যে তারতম্য আছে। তবে যেখানে যে ধরনের খাবার তৈরি হোক না কেন খাবারের প্রতি ভালোবাসাটা থাকে একইরকম। তাই খাবারেরও চাই সঠিক ভাবে যত্ন।
যেমন তেমনভাবে খাবার ফেলে রাখলে তা নষ্ট হয়ে যাবে। আর বর্তমানের এই যান্ত্রিক জীবনে খাবার নষ্ট না করে তাকে সঠিকভাবে ব্যবহার করা খুব জরুরি। আগে খাবার ধরে রাখার পাত্র হিসেবে নির্বাচন করা হতো কাঁসার, পিতলের কিংবা পাতা দিয়ে তৈরি প্লেট কিংবা পাত্র। যুগের সাথে তাল মিলিয়ে এসেছে প্লাস্টিক। বর্তমানে এটির গ্রহণযোগ্যতা বেশ। তবে এইপ্লাস্টিক কি আমাদের স্বাস্থ্যর জন্য উপযোগী? প্ল্যাস্টিকের খাবারের পাত্রের মাঝেও আছে তারতম্য। চলুন জেনে নেই সে সম্পর্কে-
ক্ষতিকর প্লাস্টিক পাত্র চিনবেন যেভাবে : বাজারে প্লাস্টিকের কৌটা কিংবা প্লাস্টিকের পাত্রের ছড়াছড়ি। কখনো আবার তা ফেরিওয়ালাদের কাছেও হরেকমাল হিসেবে সুপরিচিত। এই প্লাস্টিকগুলো মূলত সহজলভ্য হলেও মানব শরীরের জন্য মারাত্মক ক্ষতি করে। এই ধরনের প্লাস্টিকে দীর্ঘক্ষণ খাবার রাখলে তাতে বিকট গন্ধ চলে আসে আর তার পাশাপাশি খাবার ঘেমে নষ্ট হয়ে যায়। যেসব প্লাস্টিক ১৫০ থেকে ২০০ ডিগ্রী পর্যন্ত তাপ শোষণ করতে পারে সেসব প্লাস্টিক মানব শরীরের জন্য ক্ষতিসাধন করে না। বাজারের বর্তমানে ওভেন প্রুভ প্লাস্টিকের পাত্র পাওয়া যাচ্ছে যা খাবার এবং স্বাস্থ্য দুটির জন্যই ভালো।
কিভাবে ভালো প্লাস্টিক নির্বাচন করবেন : এইচ ডি পি ই দ্বারা নির্মিত প্লাস্টিকের পাত্র স্বাস্থ্যর জন্য ভালো। এই ধরনের পাত্র খাবারে বাজে আর দুর্গন্ধ সৃষ্টি করে না আর অল্প তাপেই উত্তপ্ত করে দেয় না। আপনি এটিকে স্বাভাবিক তাপমাত্রায় রেখেও অনেকদিন ব্যবহার করতে পারবেন। এই ধরনের প্লাস্টিকের পাত্রে নানা রঙ ব্যবহার করা হচ্ছে যা মানুষকে খুব সহজেই আকৃষ্ট করছে।
পিভিসি যখন প্লাস্টিকের পাত্র তৈরিতে ব্যবহার করা হয় মূলত তা করা হয় খাবারকে দীর্ঘক্ষণ ভালো আর সতেজ রাখতে। কিছু ক্ষেত্রে এর মাত্রাতিরিক্ত ব্যবহার খাবারের মান নষ্ট করে দেয়। এই পিভিসি এর সঠিক ব্যবহারের ফলে খাবার প্রচণ্ড গরমে রাখলেও তা নষ্ট হয় না বা প্লাস্টিক গলে যায় না।
কিছু প্লাস্টিকের পাত্র ছাড়াও ব্যাগ আছে যাতে খাবার সংরক্ষণ করা যায়। প্লাস্টিকের পাত্রের পাশাপাশি এই ধরনের প্যাকেটেও আপনি খাবার সংরক্ষণ করতে পারেন।