জয়পুরহাটে পুষ্টি ও নিরাপদ খাদ্যের উপর মতবিনিময় ও আলোচনা সভা

আপডেট: নভেম্বর ২২, ২০২১, ৯:২০ অপরাহ্ণ


জয়পুরহাট প্রতিনিধি:


জয়পুরহাটে সুশাসনের নাগরিক-সুজন, জয়পুরহাট জেলা কমিটির আয়োজনে জেলার ক্ষেতলাল উপজেলার আলমপুর ইউনিয়নের আকলাস শিবপুর-শ্যামপুর দ্বি-মূখী উচ্চ বিদ্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে ‘পুষ্টি ও নিরাপদ খাদ্যর সমস্যায় আমাদের করণীয়’ শীর্ষক মতবিনিময় ও আলোচনা সভায় অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার (২২ নভেম্বর) সকাল ১০টায় বিদ্যালয়টির ২০০ জন শিক্ষার্থী, অভিভাবক, সুধী জনের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত এ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা সিভিল সার্জন ডা. মো. ওয়াজেদ আলী বলেন, দেশের সকল অনিয়ম, দুর্নীতি এবং খারাপ অভ্যাস দূর করতে শিক্ষার্থীদেরকেই অগ্রণী ভূমিকা পালণ করতে হবে।

সভায় তিনি আরও বলেন, গ্রাম থেকেই অনেক কিছু ভেজাল হিসেবে শহরে যাচ্ছে। গ্রাম মানে এখন আর ফ্রেশ বলতে কিছু নেই। মাত্রাতিরিক্ত কীটনাশক নিরবেই আমাদের শরীরে প্রবেশ করছে। ভেজাল ও বিষমুক্ত খাবার নিশ্চিত করা এখন সময়ের দাবি।

আমাদের খাদ্যাভ্যাস বদলাতে হবে, তাহলে নিজ ও দেশের কল্যাণ নিশ্চিত হবে। তাই খাদ্যাভ্যাস বদলানো খুবই গুরুত্বপূর্ণ। অনিয়ম কোনভাবেই স্বাস্থ্য ঠিক রাখতে সহায়ক নয়। দেশের বিদ্যামান অনিয়ম শিক্ষার্থীদেরকেই রোধ করতে হবে। এক্ষেত্রে নারীদের অংশগ্রহণে সমসুযোগ নিশ্চিত করতে হবে। আমরা আপনাদের সাথে সব সময় আছি এবং থাকবো। মতবিনিময় সভার প্রধান আলোচক জেলা নিরাপদ খাদ্য কর্মকর্তা বলেন, নিরাপদ এবং নিরাপত্তা দুটি আলাদা বিষয়। আমাদের দেশের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত হয়েছে কিন্তু নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করা এখন সময়ের দাবি।

আমাদের সবারই দায়িত্ব হবে ফুড সাপ্লাই চেইন মেনে চলা। শুধুমাত্র আমাদের ভরসা করে এটা নিশ্চিত করা যাবে না। এ জন্য বাল্য বিবাহের আদলে একটি সামাজিক গণজাগরণ সৃষ্টি করতে হবে। বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন, বারি বগুড়ার কৃষি গবেষণা কেন্দ্রের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা শহিদুল আলম, ক্ষেতলাল উপজেলা শিক্ষা অফিসের সহকারী শিক্ষা অফিসার এফাজুল হক, ক্ষেতলাল উপজেলা স্যানিটারী ইন্সপেক্টর হারুন অর রশিদ, মৎস্য অফিসের ক্ষেত্র বিষয়ক পরিদর্শক মিটন এক্কা, বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি মো. মনসুর রহমান বাবু, প্রধান শিক্ষক আজিজুল হাসান প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, বারি জয়পুরহাট কেন্দ্রের সহকারী বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা রেজাউল করিম, ইউপি সদস্য মো. হালিম ও হোসনে আরা। সভায় বিদেশে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত জলি বেগম এ সারে মালটা চাষে উপকারিতা বিষয়ে তার অভিজ্ঞতা বর্ণনা করেন। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনায় ছিলেন সুজন, সদর উপজেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক ওমর আলী বাবু। সভাপতিত্ব ও মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন, সুজন জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক, সাংবাদিক শাহাবুদ্দিন।

উল্লেখ্য যে, দি হাঙ্গার প্রজেক্ট ও এশিয়া ফাউন্ডেশনের সহায়তায় জয়পুরহাট সহ দেশের ৬১টি জেলায় জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশলের অঙ্গীকার পূরনের লক্ষ্যে সাংবাদিকদের সক্ষমতা বিষয়ক অনলাইন প্রশিক্ষণ সম্পন্ন করেছে। বর্তমানে প্রশিক্ষিত সাংবাদিক ও সুজন নেতৃবৃন্দ নাগরিক সংলাপ এবং স্থানীয় সমস্যায় মতবিনিময় আয়োজন করছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ