নওগাঁয় ৯ম শ্রেণির ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে যুবক শ্রীঘরে

আপডেট: আগস্ট ৫, ২০২১, ১২:৪৪ অপরাহ্ণ

আব্দুর রউফ রিপন, নওগাঁ প্রতিনিধি:


নওগাঁর রাণীনগরে ৯ম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক স্কুল ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে এক যুবকের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানা পুলিশ মামলার আসামি মাসুদ রানা (২৯) কে গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠিয়েছে। মাসুদ উপজেলার সদর ইউনিয়নের খট্টেশ্বর রাণীনগরের রণসিংগার পাড়া গ্রামের মনছের আলীর ছেলে।
থানা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের জনৈক ব্যক্তির ৯ম শ্রেণিতে পড়ুয়া মেয়ের সাথে মাসুদ তার নাম পরিচয় গোপন করে ছদ্ম নাম ইমরান হোসেন ধারণ করে মোবাইল ফোনে প্রেমের সর্ম্পক গড়ে তোলে। এক পর্যায়ে ওই কিশোরীকে বিয়ে করবে জানিয়ে তাকে ঢাকায় যেতে বলে। এ সময় যুবক মাসুদ রানা কিশোরীর সাথে দেখা করে কিশোরীর প্রেমিক জনৈক ইমরান তার বন্ধু হয় জানিয়ে তাকে পৌঁছে দেয়ার কথা বলে গত সোমবার সকালে ওই কিশোরীকে নিয়ে যায়। এরপর ঢাকার আমিনপুর বাজারে পৌঁছার পর ইমরান কোথায় কিশোরী এমনটি জানতে চাইলে মাসুদ জানায় ছদ্ম নাম ইমরান হোসেন ধারণ করে মোবাইল ফোনে সে এত দিন প্রেম করেছে। এরপর মাসুদের প্রতারণা বুঝতে পেরে ওই ছাত্রী বাড়ি ফেরার জন্য কান্না শুরু করে। এতে রাতেই তাকে নিয়ে বগুড়াতে এসে একটি হোটেলে উঠে মাসুদ। এ সময় রাতে তাকে বিয়ের প্রলোভনে কু-প্রস্তাব দিয়ে নানান ভাবে যৌন নিপীড়ন করতে থাকে। এ সময় ওই কিশোরী কান্না করতে করতে রুম থেকে বাহিরে আসলে তাকে সেখান থেকে নিয়ে মঙ্গলবার সকালে নওগাঁ শহরের তাজের মোড়ে নামিয়ে দিয়ে যুবক মাসুদ রানা পালিয়ে যায়। এরপর কিশোরী তার পরিবারের লোকজনকে মোবাইল ফোনে জানালে পরিবারের লোকজন বাড়িতে নিয়ে আসে। কিশোরী মেয়ের সাথে ছদ্ম নামে প্রেমের অভিনয় ও ফুসলিয়ে অপহরণ করে মেয়ের ইচ্ছার বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়ন করেছে এমন অভিযোগ এনে মাসুদকে আসামী করে মেয়ের বাবা বাদী হয়ে মঙ্গলবার রাণীনগর থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলার প্রেক্ষিতে থানা পুলিশ মাসুদ রানাকে গ্রেফতার করেছে।
রাণীনগর থানার ওসি (তদন্ত) তারেকুল ইসলাম বলেন, কিশোরী মেয়েকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। সে মামলার প্রেক্ষিতে আসামী মাসুদ রানাকে গ্রেফতার করে বুধবার আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ