নগরীর উপকণ্ঠে গৃহবধূকে শ্বাসরোধে হত্যা, শ্বশুর আটক

আপডেট: জানুয়ারি ৮, ২০১৭, ১২:১২ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক



নগরীর উপকণ্ঠ কাটাখালি শাহাপুর এলাকায় সুমি খাতুন (২৪) নামে এক গৃহবধূকে শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। সুমি ওই এলাকার মিঠুন আলীর স্ত্রী। তার বাবার বাড়ি পার্শ্ববর্তী হরিয়ান সুগারমিল এলাকায়।
এ ঘটনায় ওই গৃহবধূর শ্বশুর আবদুল মজিদকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল শনিবার রাত সাড়ে আটটার দিকে তাকে তার বাড়ি থেকে মতিহার থানা পুলিশ আটক করে। তবে বিকেলের ওই ঘটনার পর থেকে গৃহবধূর স্বামীসহ বাড়ির অন্য সদস্যরা পলাতক রয়েছে।
নিহত গৃহবধূর মামা রাজু আহমেদের বরাত দিয়ে মতিহার থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সেলিম রেজা জানান, প্রায় সাড়ে ৪ মাস আগে মিঠুনের সঙ্গে সুমির বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে যৌতুককে কেন্দ্র করে তাদের মধ্যে পারিবারিক বিরোধ চলছিল।
এ নিয়ে শনিবার সন্ধ্যায় সুমিকে তার বাবার বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার জন্য রওনা হয়েছিলেন তার মামা। তবে এরই মধ্যে সুমির বাবার বাড়িতে খবর দেয়া হয় তিনি আত্মহত্যা করেছেন। তবে তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করছেন সুমির বাবার বাড়ির লোকজন।
এসআই সেলিম রেজা আরও জানান, পুলিশ খবর পাওয়ার আগেই সুমির লাশ রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নিয়ে যান তার শ্বশুর বাড়ির লোকজন। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করলে লাশ রেখে সবাই সটকে পড়েন। খবর পেয়ে রাতে পুলিশ হাসপাতালে যায়। হাসপাতালের চিকিৎসক পুলিশকে জানিয়েছেন, হাসপাতালে নেয়ার আগেই সুমির মৃত্যু হয়েছে।
মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবীর জানান, সুমি আত্মহত্যা করেছেন-এমন কোনো আলামত পাওয়া যায়নি। তবে মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত হতে লাশের ময়নাতদন্ত করা হচ্ছে। আর এ ঘটনায় হত্যা মামলা দায়েরের জন্য নিহত সুমির বাবা আসাদুজ্জামান থানায় এসেছেন। মামলার প্রস্তুতি চলছে।
তিনি আরও জানান, তাৎক্ষণিকভাবে সুমির শ্বশুরকে আটক করা হয়েছে। তবে বাড়ির অন্য সদস্যরা পালিয়ে গেছেন। তাদেরও আটকের চেষ্টা চলছে।