বড়াইগ্রামে যুবতীর আত্মহত্যা

আপডেট: জুন ২০, ২০১৭, ১২:৩৬ পূর্বাহ্ণ

নাটোর প্রতিনিধি


নাটোরের বড়াইগ্রামে পিয়ারা খাতুন (২৮) নামের এক যুবতী বিষ পানে আত্মহত্যা করেছে গত রবিবার রাতে। বিষ পানের পর তাকে স্থানীয় বনপাড়া আমিনা হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মৃত্যুবরণ করে। পিয়ারা খাতুন উপজেলার হারোয়া পূর্বপাড়া গ্রামের আজাহার আলীর মেয়ে। সবার অজান্তে সে বাবার বাড়িতে বিষ পান করে। গ্রামবাসীরা জানায় স্বামী ছেড়ে দেয়ার পর সে বাবার বাড়িতে বসবাস করতো। পিয়ারর বাবা আজাহার প্রামানিক , পিয়ারার জমানো টাকার মধ্যে আশি হাজার টাকা ধার নেয় তার ভাই আকরাম হোসেন ও পনের হাজার টাকা ধার নেয় মামাতো বোন রুপালী। এ টাকা চাইলেই তাকে মারপিট করে আকরাম ও একই গ্রামের রুপালীর বাবা রুপচাঁদ আলী।তিনি আরো জানান, অনুরুপভাবে গত রোববারও টাকা চাওয়ায় তার ভাই আকরাম ও রূপচাঁদ তাকে বেধড়ক মারপিট করে। এ কারণে দুঃখে, ক্ষোভে ও ঘৃণায় আত্মহত্যা করে সে। গতকাল সোমবার তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ ময়না তদন্তের জন্য নাটোর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে। এ ঘটনায় বড়াইগ্রাম থানায় একটি ইউডি মামলা হয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ