মান্দায় মাদরাসার নৈশ প্রহরীকে কুপিয়ে হত্যা

আপডেট: জুলাই ৫, ২০১৭, ১২:৩৬ পূর্বাহ্ণ

মান্দা প্রতিনিধি


নওগাঁর মান্দায় হাফেজীয়া মাদরাসার মনসুর রহমান (৩৮) নামে এক নৈশ্যপ্রহরীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। গত সোমবার রাত ১১টার দিকে উপজেলার ভালাইন কওমি নুরানী হাফেজিয়া মাদরাসা ও এতিমখানা চত্বরে এ ঘটনা ঘটে। নিহত মনসুর রহমান ভালাইন গ্রামের আবদুল মালেক সরদারের ছেলে।
মাদরাসা পরিচালনা কমিটির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আকতারুজ্জামান জানান, মাদরাসায় হেফজুল কুরআন ও মক্তবখানায় ২৮ জন শিক্ষার্থী রয়েছে। রমজান উপলক্ষে তাদের এক মাস ১০ দিনের ছুটি দেয়া হয়। কিন্তু শিক্ষক মুফতি ফয়জুল্লাহ ভালাইন বাজার জামে মসজিদে তারাবিহ্ নামাজ পড়ানোর কারণে তিনি মাদরাসায় অবস্থান করতেন। ঈদের আগের দিন (২৫ জুন) সকালে তিনি বাড়ি চলে গেলে পরিচালনা কমিটির সিদ্ধান্তে রাতে মাদরাসা পাহারার জন্য দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল মনসুর রহমানকে। দায়িত্ব পালনকালে সোমবার রাতে তার ওপর এ হামলার ঘটনা ঘটে।
স্থানীয়রা জানান, বাজার থেকে প্রায় ৩শ গজ দূরে নির্জন জায়গায় মাদরাসাটির অবস্থান। রাত ১১টার দিকে গুরুতর জখম অবস্থায় মনসুর রহমান বাজারে এসে লুটিয়ে পড়েন। এসময় তার দেহ থেকে প্রচুর রক্তক্ষরণ হচ্ছিল। এ অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে মান্দা হাসপাতালে নেয়া হয়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু ঘটে।
এ বিষয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আনিছুর রহমান জানান, সংবাদ পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শনসহ নিহতের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি ও ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনায় নিহতের ছোটভাই মজিদুর রহমান বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেছেন।