মিডিয়ায় বস্তুনিষ্ঠ ও ইতিবাচক সংবাদ তুলে ধরতে হবে ।। মতবিনিময়ে তথ্য অফিসার শামীম চৌধুরী

আপডেট: নভেম্বর ২৪, ২০১৬, ১১:৫৪ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক
সরকারের উদ্যোগ, এসডিজি বাস্তবায়ন ও শুদ্ধাচার নিয়ে রাজশাহীর সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে প্রধান তথ্য অফিসার একেএম শামীম চৌধুরী বলেছেন, সংবাদ মাধ্যম রাষ্ট্রের চতুর্থ স্তম্ভ। গণতন্ত্র ও জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠায় মিডিয়া গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। মিডিয়া সততা, ন্যায়-নিষ্ঠার সঙ্গে জাতির বিবেক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। বিভিন্ন প্রতিকূলতা ও দৈন্যতা থাকার পরেও দেশের উন্নয়নে রাজশাহীর সাংবাদিকরাও অবদান রাখছে। মিডিয়াতে যারা কাজ করে তাদের দায়িত্ববোধটা অন্যদের থেকে ভিন্ন। মিডিয়ার মাধ্যমে সরকার ও জনগণ তথ্য সেবা পেয়ে থাকে। তাই সংবাদের বস্তুনিষ্ঠতার পাশাপাশি ইতিবাচক কর্মকা-ের খবর তুলে ধরা উচিত। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় রাজশাহী সার্কিট হাউসের সম্মেলন কক্ষে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
শামীম চৌধুরী বলেন, মিডিয়াকে বস্তুনিষ্ঠ হতে হবে, এর কোন বিকল্প নেই। বস্তুনিষ্ঠ সংবাদের জন্য সরকার সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে পারে। মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস বিকৃত করে ষড়যন্ত্রের চেষ্টা চলছে। এজন্য গণমাধ্যমকে বুদ্ধি ও কৌশল নিয়ে সংবাদ পরিবেশন করতে হবে। সহিংসতা, লড়াই সংগ্রামের ঘটনা প্রচার করে মানুষকে সজাগ করেছেন। বর্তমানে সংবাদ পরিবেশনের যোগাযোগ আধুনিক হয়েছে। এক্ষেত্রে তিনি দেশের প্রাচীনতম ও ঐতিহ্যবাহী দৈনিক ইত্তেফাকের গঠনমূলক ও বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতার উজ্জ¦ল দিক তুলে ধরে প্রশংসা করেন। একই সাথে তিনি সাংবাদিকদের কল্যাণে দৈনিক ইত্তেফাক কর্তৃপক্ষের ৪ কোটি টাকা অনুদান প্রদানের প্রসঙ্গ তুলে ধরেন। এছাড়া তিনি বলেন, মিডিয়ায় সরকারের নেতিবাচক সংবাদের পাশাপাশি ইতিবাচক খবরও তুলে ধরা উচিত।
মতবিনিময় অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন, রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার আবদুল হান্নান, রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি কাজী শাহেদ ও রাজশাহী সাংবাদিক কল্যাণ তহবিলের চেয়ারম্যান লিয়াকত আলী। মুক্ত আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন, সিনিয়র সাংবাদিক সফিকুল ইসলাম, এটিএন বাংলার স্টাফ রিপোর্টার সুজাউদ্দিন ছোটন, ইত্তেফাকের স্টাফ রিপোর্টার আনিসুজ্জামান ও মানবজমিনের স্টাফ রিপোর্টার আসলাম উদ দৌলা প্রমুখ।
বক্তব্যে প্রধান তথ্য অফিসার শামীম চৌধুরী সরকারের গৃহীত কর্মকা- অব্যাহত থাকলে ২০২১ সালের মধ্যেই বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হবে বলে আশা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, সরকার এমডিজি বাস্তবায়নে কাজ করেছেন সফলভাবে। এসডিজি বাস্তবায়নের অঙ্গীকার বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রী নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। উন্নয়ন ত্বরান্বিত করতে সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে শুদ্ধাচার জরুরি। সরকার এনিয়েও কাজ করছেন। এসব কাজে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মী হিসেবে গণমাধ্যমকর্মীদের এগিয়ে আসতে হবে।