যুবকের বিশেষ অঙ্গ কর্তন, নারী গ্রেফতার

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ৮, ২০২২, ৯:০৭ অপরাহ্ণ

বড়াইগ্রাম (নাটোর) প্রতিনিধি:


নাটোরের বড়াইগ্রামে জহুরুল ইসলাম নামে এক যুবকের বিশেষ অঙ্গ কর্তনের অভিযোগে মুন্নি বেগম (২৫) নামের এক নারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এরআগে জহুরুলের বাবা উপজেলার সোনাপুর গ্রামের বিরাজ উদ্দিন ওই নারীর নামে থানায় মামলা দায়ের করেন। সোমবার রাত ১২টার দিকে উপজেলার জালশুকা গ্রামে ওই ঘটনা ঘটে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, মুন্নি বেগম ও জহুরুল ইসলাম প্রতিবেশী। সোমবার রাতে জহুরুল ইসলামকে মুন্নি তার বাবার বাড়ি উপজেলার জালশুকা গ্রামে মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে যায়। সেখানে কৌশলে ধারালো অস্ত্র দিয়ে জহুরুলের বিশেষ অঙ্গ কেটে দেয়। পরে আহত অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে রাতেই ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

মুন্নি বেগমের মা গুলজান বলেন, জহুরুল ইসলাম একজন মাদকাসক্ত। আমার মেয়েকে ব্লাকমেইল করত। কিছুদিন আগেও পাঁচ হাজার টাকা নিয়েছে। তার ব্লাকমেইলের কারণে কাউকে কিছু বলতে পারত না। মেয়ে অতিষ্ঠ হয়ে স্বামীর সংসার ছেড়ে আমার বাড়িতে থাকতে শুরু করে।

সোমবার রাতে আমার মেয়েকে তার ব্লাকমেইলে রাজি না হলে ধারালো ছুরি দিয়ে হত্যা করতে চাইলে ধস্তাধস্তিতে তার লিঙ্গ কেটে যায়। গ্রেফতার মুন্নি বেগম উপজেলার উপলশহর গ্রামের আব্দুল গফুরের স্ত্রী। বড়াইগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ আবু সিদ্দিক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।