রাজশাহী ও নাটোরে তালিকাভুক্ত জেএমবির পাঁচ সদস্য গ্রেফতার পবায় গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে রয়েছে পুলিশের ওপর হামলার মামলা

আপডেট: মার্চ ১৩, ২০১৭, ১২:২৫ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক



রাজশাহী ও নাটোর থেকে পাঁচ জন তালিকাভুক্ত জেএমবি সদস্যদের আটক করা হয়েছে। রাজশাহী ও নাটোর থানা পুলিশ অভিযানে চালিয়ে এ তালিকাভুক্ত জেএমবি সদস্যদের আটক করে। এদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় মামলা রয়েছে। গতকাল রোববার আদালতের মাধ্যমে তাদের কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।
আটককৃত ব্যক্তিরা হচ্ছেন, পবা থানার নওহাটা এলাকার আরিফুল ইসলাম ও মানসুর রহমান, বাগমারা থানার ঝিকড়া ইউনিয়নের আব্দুর রাজ্জাক, বাঘার থানার আড়ানি এলাকার আব্দুল আউয়াল এবং নাটোরের বড়াইগ্রাম এলাকার মেরিগাছা গ্রামের সাহাবুদ্দিন মাস্টার ও রহিদুল ইসলাম।
পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, রাজশাহীর পবা থানা দুই জন, বাগমারা ও বাঘা থানা একজন করে এবং নাটোরের বড়াইগ্রাম থানা দুইজনকে আটক করে। এদের মধ্যে রাজশাহীর পবা থানা তালিকাভুক্ত দুই জেএমবি সদস্যের বিরুদ্ধে পুলিশের ওপর হামলার অভিযোগে ঢাকার পল্টন থানায় মামলা রয়েছে। বাগমারা থেকে আটককৃত জেএমবি সদস্য বাংলা ভাইয়ের মাধ্যমে নিষিদ্ধ ঘোষিত জেএমবির সদস্য ছিলেন। তার বিরুদ্ধে থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। রাজশাহী বাঘা থানায় আটককৃতের নামেও থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। নাটোরের বড়াইগ্রাম থেকে আটককৃত ব্যক্তির নামে জেএমবি সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে ২০০৯ সালে নগরীর বোয়ালিয়া থানায় মামলা রয়েছে।
পবা থানার ওসি পরিমাল কুমার চক্রবর্তী জানান, আরিফুল ও মানসুর নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জেএমবির সদস্য। তারা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ে তালিকাভুক্ত জঙ্গি। তবে তারা বলছে, তারা ঢাকায় হিযবুত তাহরির সদস্য ছিলেন। এলাকায় তারা দুইজনে জঙ্গি কর্মকাণ্ড চালাচ্ছিলেন এমন সংবাদের ভিত্তিতে রোববার রাত দেড়টার দিকে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
এদিকে বাগমারা থানার ওসি নাছিম আহম্মেদ বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রোববার দিবাগত মধ্যরাতে গুনিয়াডাঙ্গা গ্রামের অভিযান চালিয়ে রাজ্জাককে গ্রেপ্তার করা হয়। সে পুলিশের তালিকাভুক্ত জেএমবি সদস্য। তার বিরুদ্ধে থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। ২০০৪ সালে বাংলা ভাইয়ের মাধ্যমে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জামায়াতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশ জেএমবিতে যোগ দেয় সে।
বাঘার থানার ওসি আলী মাহমুদ জানান, পুলিশ অভিযান চালিয়ে আড়ানি বাজার থেকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত এক জেএমবি সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়। রোববার সন্ধ্যা সাতটায় তার আড়ানি বাজারে অবস্থিত অ্যালুমিনিয়ামের দোকান ঘর থেকে আটক করা হয়েছে।
এদিকে নাটোর প্রতিনিধি জানিয়েছে, নাটোরের বড়াইগ্রাম থেকে সন্দেহভাজন দুই জেএমবি সদস্য সাহাবুদ্দিন ও রহিদুলকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। রোববার বেলা ১২টার দিকে নাটোরের সহকারী জজ আদালতের বিচারক সামসুল আল আমিন আদালতের মাধ্যমে তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। রোববার দুপুরে তাদের কড়া পুলিশি নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে নাটোর জেলা জজ আদালতে হাজির করে জামিন আবেদন করা হয়। আদালতের বিচারক তাদের জামিন না মঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন ও ২৩ এপ্রিল পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেন।
এর আগে শুক্রবার রাতে তাদের বড়াইগ্রাম উপজেলার মেরিগাছা গ্রাম থেকে তাদের আটক করা হয়। সাহাবুদ্দিন মাস্টার মেরিগাছা উত্তরপাড়া গ্রামের গেদু প্রামানিকের ছেলে এবং রহিদুল ইসলাম একই এলাকার আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে । তাদের বিরুদ্ধে নিষিদ্ধ ঘোষিত সংগঠন জেএমবির সংশ্লিষ্টতায় ২০০৯ সালে রাজশাহীর বোয়ালিয়া থানায় তাদের দুজনের নামে মামলা দায়ের করা হয়। এর আগে ওই মামলায় তারা গ্রেফতারও হয়েছিল।