রামেক হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত ও উপসর্গে ব্যবসায়ী-চিকিৎসকের মৃত্যু

আপডেট: জুলাই ৯, ২০২০, ১০:১৬ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে করোনায় পল্লী চিকিৎসকসহ দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে একজনের করোনা পরীক্ষায় পজিটিভ ছিল। অপরজন করোনা উপসর্গ নিয়ে।
মৃত ব্যক্তিরা হলেন, নওগাঁ সদর উপজেলার পাড় নওগাঁ এলাকার মৃত শ্যামাপদ দাসের ছেলে রতন কুমার দাস এবং রাজশাহী নগরের মালোপাড়া এলাকার ব্যবসায়ী তোফাজ্জল হোসেন (৫৮)।

রামেক হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস জানান, রাজশাহীর ব্যবসায়ী তোফাজ্জল হোসেনের করোনা পজিটিভ ছিল। তিনি হোম আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন ছিলেন। তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে বৃহস্পতিবার সকালে তাকে হাসপাতালে নেয়া হয়। তাকে ৩৯ নং ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। সেখানে বেলা সাড়ে ১০টার দিকে তিনি মারা যান।

তিনি বলেন, করোনা উপসর্গ নিয়ে বুধবার সন্ধ্যা রতন কুমারকে নওগাঁ হাসপাতাল থেকে রাজশাহীতে স্থানান্তর করা হয়। ২৯ নং করোনা ওয়ার্ডে তাকে ভর্তি করে রাতেই তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। তবে পরীক্ষার আগে রাত আড়াইটার দিকে তার মৃত্যু হয়। তাদের দুইজনের দাফন ও সৎকার করার জন্য কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে বলে জানান এই স্বাস্থ্য কর্মকর্তা।
এ ব্যাপারে কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের পরিচালক মেহেদি হাসান জানান, মৃত্যু দুই ব্যক্তির দাফন ও সংকার স্বাস্থ্যবিধি অনুযায়ী কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের কর্মীরা করেছেন।

মৃত রতুন কুমারের ছেলে সজিব কুমার জানান, প্রায় এক সপ্তাহ ধরে জ্বর-সর্দি-কাশি ও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন তার বাবা। তাই করোনার পরীক্ষা করাতে নওগাঁ সদর হাসপাতালে পাঁচ দিন আগে নমুনা দেয়া হয়। কিন্তু রিপোর্ট পাননি। বুধবার শ্বাসকষ্ট বেড়ে যাওয়াসহ শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে নওগাঁ সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে সন্ধ্যায় তাকে রামেক হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে ভর্তি করা হয়।